ঢাকা, বৃহস্পতিবার 16 March 2017, ০২ চৈত্র ১৪২৩, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ এবার নতুন আঙ্গিকে

নাজমুল ইসলাম জুয়েল : ঘরোয়া ক্রিকেটকে দেশের সবচেয়ে জমজমাট আসর হিসেবে অভিহিত করা হয়ে থাকে। বিশেষ করে সর্বশেষ মৌসুমে প্রতিটা রাউন্ডই ছিল উত্তেজনাময়। সেখানে শিরোপা জয়েল সম্ভাবনায় পিছিয়ে ছিলনা কয়েকটি দল। শিরোপা নিষ্পত্তিও হয়েছিল একেবারে শেষ ম্যাচে এসে। এবার তেমনি প্রত্যাশা করা হচ্ছে এই আসর নিয়ে। একটা জায়গায় ফুটবলের ঠিক বিপরীত অবস্থান ক্রিকেটের। সারা বছরই চলে ঘরোয়া বিভিন্ন প্রতিযোগিতা। সেখানে স্থান রয়েছে বয়সভিত্তিক প্রতিযোগিতারও। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের জন্য কোন টুর্নামেন্টই বন্ধ থাকে না। সর্বশেষ থাকেনি জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) ও বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএিল) খেলা। সর্বশেষ বিসিএল আসরটি ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক হওয়ায় জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে আয়োজনের পরিকল্পনা ছিল। সে কারণে দু’বার খেলা পেছানো হয়েছিল। তবুও এক রাউন্ড পেয়েছিল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ব্যস্ত সময় কাটানো মুশফিক, তামিম, সাকিবদের। সেখানেও সবাইকে পাওয়া যায়নি। এমনিতে চলতি বছর ঠাসা আন্তর্জাতিক স্যুচির কারণে দম ফেলানোর কোন ফুরসত নেই। এ অবস্থার মধ্যেই আগামী ৭ এপ্রিল থেকে শুরু হবে ঘড়োয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট আসর ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ। শুরুতে কবে মাঠে গড়াবে ২০১৬-১৭ মৌসুমের ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ, সেটা শুরুতে জানা ছিল না। পরে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই তারিখ নির্ধারণ করা হয়। তবে এবার ক্লাব সূত্রে জানা গেছে, প্লেয়ার বাই চয়েস ছাড়াই উন্মুক্ত পদ্ধতিতে ক্রিকেটারদের দলবদল হবে। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে গঠিত বহুল সমালোচিত ‘পুল’ও নাকি এবার থাকছে না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ব্যস্ততা কারণে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের পাওয়া যাবে না পুরো লিগ জুড়ে। অবশ্য পছন্দসই চার-পাঁচজন তারকা ক্রিকেটারকে দরকষাকষির মাধ্যমে দলে টানার স্বাধীনতা থাকবে ক্লাবগুলোর। শ্রীলঙ্কা সফর শেষে এসে প্রিমিয়ার লিগ খেলবেন মুশফিক-মাহমুদুল্লাহরা। এসব মেনে নিয়েই ক্লাবগুলো এবার প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের সামিল করেছে। শ্রীলঙ্কায় শেষ দিকে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল। তাই শুধু টেস্ট খেলা ক্রিকেটাররা ফিরে এসে লিগ খেলবেন। অর্থাৎ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ফ্রি থাকা সাপেক্ষে লিগ খেলতে দেখা যাবে। মে মাসে আয়ারল্যান্ডে তিন জাতি সিরিজ ও জুনে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলতে যাবে বাংলাদেশ। লিগ শুরু হবে ভেবে দল গোছানোর কাজ করছে কয়েকটি ক্লাব। জানা গেছে, গত আসরের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিটেড, প্রাইম দোলেশ্বর, প্রাইম ব্যাংক পছন্দের অনেক ক্রিকেটারের সঙ্গে কথা পাকাপাকি করে ফেলেছে।
 প্রথম বিভাগ থেকে প্রিমিয়ারে উঠে আসা খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সংঘও ভালো দল গড়ার দৌড়ে আছে। ক্লাব সূত্রের খবর, মাহমুদুল্লহকে ঘিরে দল গোছানোর কাজ শুরু করেছিল খেলাঘর। গুঞ্জন ছিল একঝাঁক খুলনা বিভাগের ক্রিকেটার খেলাঘরের হয়ে খেলবেন। সেই তালিকায় ছিল ইমরুল কায়েস, আল-আমিন হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, ইলিয়াস সানি, মোশাররফ হোসেন রুবেল, মো: শরীফদের নাম। পরে অবশ্য জানা গেছে, এবার লিগে খেলাঘরের হয়ে মোহাম্মদ আশরাফুলের খেলার বিষয়টি অনেকটাই নিশ্চিত। ধারাবাহিকভাবে না পাওয়ার অনিশ্চয়তা থাকায় জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ছাড়াই তারুণ্যে ঠাসা একটা দল ইতোমধ্যেই দাঁড় করিয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। ধানমন্ডির অভিজাত পাড়ার এই ক্লাবটির সূত্র জানায়, ১০-১১ ক্রিকেটার নিশ্চিত করেছে আবাহনী। পরে পরিস্থিতি বুঝে তারকা ক্রিকেটারদের নিবে দলটি। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান লিটন কুমার দাস, ব্যাটসম্যানদের মধ্যে অভিজ্ঞ মিঠুন আলী, তরুণ নাজমুল হোসেন শান্ত, আফিফ হোসেন ধ্রুব, বাঁহাতি স্পিনার সাকলাইন সজীব, সানজামুল ইসলাম, পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, পেসার আবু জায়েদ রাহীকে নিশ্চিত করেছে আবাহনী। এছাড়া তামিম ইকবাল, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাসকিন আহমেদও রয়েছেন ক্লাবটির তালিকায়। শীর্ষ ক্লাবগুলোর মাঝে দল গঠনে সবচেয়ে পিছিয়ে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড। পছন্দের ক্রিকেটারদের তালিকা করলেও আলাপ-আলোচনা শুরু করতে পারেনি সাদা-কালো শিবির। এছাড়া বাকি দলগুলোও নিজেদের মতো করেই দল গোছানোর কাজ শুরু করেছে। যারা ভাল দল গড়তে পারবে তাদেরই শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা বেশি থাকত। পাশাপাশি বিদেশী কালেকশনও ভাল করতে হবে দলগুলোকে।
প্রত্যাশা অনুযায়ী পারিশ্রমিক পাচ্ছে খেলোয়াড়রা
প্লেয়ার বাই চয়েসের কারণে সর্বশেষ মৌসুমে ইচ্ছামতো পারিশ্রমিক নিতে পারেননি। এবার তাতে নতুন করে যোগ হয়েছে। এবার ক্রিকেটারদের সম্মানীর লাগাম টেনে ধরতে প্লেয়ার্স বাই চয়েজ ফর্মুলা আর নয়, ২০১৬-১৭ ক্রিকেট মৌসুমে প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে পছন্দমতো ক্লাব খুঁজে নিতে পারবে ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আগেভাগে এই ঘোষণা দেয়ায় ক্রিকেটারদের সম্মানীর অঙ্ক অতীতের সব রেকর্ডকে গেছে ছাড়িয়ে! প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে খেলোয়াড়দের আনুষ্ঠানিক দল-বদলের দিনক্ষণ নির্দিষ্ট হয়নি এখনো, ঘরোয়া ক্লাব ক্রিকেটে সবচেয়ে আকর্ষণীয় এই আসর আয়োজনে সুবিধাজনক স্পটও খুঁজে বের করতে পারেনি বিসিবি কিংবা ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিশ (সিসিডিএম)। প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের জন্য ক্রিকেটারদের পুলও ঘোষণা করেনি বিসিবি। তারপরও অংশগ্রহণকারী দলসমূহের অধিকাংশই ঘর গুছিয়ে ফেলেছে। পছন্দের ক্রিকেটারদের নিশ্চিত করতে শ্রীলঙ্কার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ দল ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার আগেই তারকা ক্রিকেটারদের হাতে বুঝিয়ে দিয়েছে অগ্রীম পেমেন্ট! গতবার প্লেয়ার্স বাই চয়েজে যেখানে সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাশরাফি, মাহামুদুল্লাহ, সৌম্য ও সাব্বিরদের সম্মানী নির্ধারিত ছিল ৩০ লাখ টাকা, এবার সেখানে তাদের সবার অঙ্ক ছাড়িয়ে গেছে অর্ধ কোটি টাকা! ২০১৪-১৫ ক্রিকেট মৌসুমে প্রিমিয়ার ডিভিশনে সম্মানীর রেকর্ডে যৌথভাবে শীর্ষে অবস্থান ছিল সাকিব, তামিমের। অর্ধ কোটি টাকা স্পর্শ করেছে তাদের অঙ্ক। এবার সেখানে এই দুইজনের সম্মানী স্পর্শ করছে ৬০ লাখ টাকা। মাশরাফি, মাহামুদুল্লাহ, মুশফিকুর অর্ধকোটি টাকা পাচ্ছেন এমনটাই নিশ্চিত করেছেন লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের সঙ্গে সম্পৃক্ত এক কর্মকর্তা! মাশরাফি নিজেও এমন আভাস দিয়েছেন ‘শুনেছি মাহামুদুল্লাহ রিয়াদ, মুশফিক ৫০ লাখ করে পাবে।’ উন্মুক্ত দলবদলে ক্রিকেটারদের সম্মানীর অঙ্ক অজানা থাকে মূলত: জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নজর এড়াতে, তাই তারকা ক্রিকেটারদের সম্মানীর অঙ্ক এবার কেউ স্পর্শ করতে পারে কোটি টাকা, লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ মাশরাফিকে পেতে এমন অফারই নাকি দিয়েছে বলে এক ক্লাবের কর্মকর্তা দিয়েছেন বিস্ময়কর তথ্য। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিটেড খেলোয়াড় সংগ্রহে সবার আগে নেমে পড়েছে মাঠে। তাদের দেখাদেখি রানার্স আপ প্রাইম দোলেশ্বর, সুপার লিগের দল লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড, প্রাইম ব্যাংক, কলাবাগান ক্রীড়া চক্র ছাড়াও সর্বশেষ আসরে সুপার লিগে উঠতে ব্যর্থ গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স, প্রিমিয়ার ডিভিশনের দুই নবাগত খেলাঘর এবং পারটেক্স স্পোর্টিং ঘর গোছানোর কাজ রেখেছে এগিয়ে। গত আসরে ক্রিকেটারদের ৯৮ লাখ টাকা পরিশোধে ব্যর্থ ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব এখনো দল গঠনে নিশ্চুপ।
ব্রাদার্স ইউনিয়ন এবং শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবও দল গঠনে নামেনি মাঠে। খোঁজ নিয়ে এ তথ্যই বেরিয়ে এসেছে। অংশগ্রহণকারী দলসমূহের মধ্যে শক্তির ভারসাম্য রাখতে উন্মুক্ত দলবদলেও ছিল পুল প্রথা। ১৯৯৯ সাল থেকে পুল প্রথায় দল গঠনে অভ্যস্ত প্রিমিয়ার ডিভিশনের ক্লাবগুলো এখন পর্যন্ত পুলের ক্রিকেটারদের তালিকা বিসিবি থেকে ঘোষিত না হওয়ায় খেলোয়াড় সংগ্রহে শক্তি প্রদর্শনে বড় অঙ্কের বাজেট নিয়ে নেমেছে মাঠে গতবার যেখানে প্লেয়ার্স ড্রাফট অনুষ্ঠানে দল গঠনে স্থানীয় ক্রিকেটার সংগ্রহে একটি ক্লাবকে সর্বোচ্চ খরচ করতে হয়েছে এক কোটি ৯২ লাখ টাকা, এবার সেখানে আবাহনী, লিজেন্ড অব রূপগঞ্জের বাজেট ছাড়িয়ে গেছে চার কোটি টাকা! জাতীয় দলের বর্তমান ক্রিকেটারদের মধ্যে সাকিব, তামিম, মুস্তাফিজ, লিটন, মোসাদ্দেক  সৈকত, নাজমুল হোসেন শান্তকে পেয়ে, টপ অর্ডার মেহেদী মারুফ ও মিঠুন, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক সাইফ, স্পিনার সানজামুল, স্পিন অল রাউন্ডার সোহাগ গাজী, পেস অল রাউন্ডার সাইফউদ্দিনকে দলে টেনে রীতিমতো চাঁদের হাট যেন বসিয়েছে আবাহনী! ২২ ক্রিকেটারকে দলে ভিড়িয়ে শিরোপা অক্ষুণœ রাখার কথা প্রকারান্তরে জানিয়ে দিয়েছে আবাহনী।
আবাহনীকে টেক্কা দিতে মাশরাফি, মুশফিক, মাহামুদুল্লাহ’র মতো সেরাদের দলে ভিড়িয়েছে লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ। টেস্ট স্পিনার তাইজুল, বিসিএলে হ্যাটট্রিক সেঞ্চুরিতে ফর্মের তুঙ্গে থাকা নাইম ইসলাম, ২০১৪-১৫ মৌসুমে প্রিমিয়ার ডিভিশনে ২৮ উইকেট শিকারে হৈ চৈ ফেলে দেয়া আসিফ হাসান, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের টপ অর্ডার পিনাক ঘোষ, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের পারফরমার ইজাজ, পেস বোলার দেওয়ান সাব্বির এবং হার্ড হিটার হাসানুজ্জামানকেও লোভনীয় অফারে দলে টেনেছে লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ। প্রিমিয়ার ডিভিশনের সøটটা অনির্ধারিত বলেই জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ছাড়াই দল গঠনে মনোযোগী হয়েছে উপর্যুপরী দুই আসরের রানার্স আপ প্রাইম দোলেশ্বর।
শাহরিয়ার নাফিস, ইমতিয়াজ হোসেন তান্না, ফরহাদ রেজা, আবদুল মজিদ, মোঃ শরীফুল্লাহ, দেলোয়ার হোসেন, মার্শাল আইয়ুব, আরাফাত সানির হাতে অগ্রীম বুঝিয়ে দিয়ে অনেকটাই নিশ্চিন্ত প্রাইম দোলেশ্বর। গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স সেখানে নিশ্চিত করেছে মুমিনুল, এনামুল বিজয়, নাসির হোসেন এবং এনামুল জুনিয়রকে। দল গঠনে সবার পরে নেমেও চমক দিয়েছে মোহামেডান। টপ অর্ডার ইমরুল কায়েস এবং ক্রিকইনফো বর্ষসেরা ডেব্যুটেন্ট মেহেদী হাসান মিরাজ ও পেস বোলার শুভাশিষ রায়কে আগেভাগে পেয়ে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলছে ঐতিহ্যবাহী এই ক্লাবটি। মাশরাফির পারফরমেন্সে গতবার সুপার লিগে খেলা কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে পাকা কথা দিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তাসামুল হক, নাবিল সামাদ এবং শাহবাজ চৌহানও তাদের সংগ্রহে। নূরুল হাসান সোহান, শুভাগত হোম চৌধুরী, আল আমিন জুনিয়র, আসিফ আহমেদ রাতুল, তাইবুর পারভেজ, নাজমুল ইসলাম অপু, আরিফ হোসেন, সালমান হোসেনকে পেয়ে শক্তির ভারসাম্য ঠিকই পেয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। দুই নবাগত দলের মধ্যে এবার খেলাঘর জায়ান্টদের মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। বিপিএলে নিষিদ্ধ এক ফ্রাঞ্চাইজি মালিক দল গঠনে পর্যাপ্ত অর্থায়নের আশ্বাস দেয়ায় লোভনীয় অফারে ক্লাবটি। মাহামুদুল্লাহ রিয়াদ, রুবেল হোসেন, অলক কাপালী, মোহাম্মদ মিঠুন, মোশারফ হোসেন রুবেল, আব্দুর রাজ্জাক রাজ, নুরুল হাসান সোহান, আল আমিন হোসেন, ইলিয়াস সানি, মোহাম্মদ শরীফকে দলে ভেড়ানোর বার্তা পর্যন্ত দিয়েছিল। মাহামুদুল্লাহকে পেতে ৬০ লাখ টাকার অফার পর্যন্ত ছিল তাদের। তবে নিষিদ্ধ ওই মালিকের সম্পৃক্ততার খবর জানা-জানি হওয়ায় ধাক্কা খেতে হয়েছে খেলাঘরকে। তবে ঘটনা জানাজানি হওয়ায় হাতছাড়া হয়ে গেছে মাহামুদুল্লাহ, কাপালী, মিঠুন, সোহান। সিসিডিএমর এক বিশ্বস্ত সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
প্রিমিয়ার ডিভিশনের আর এক নবাগত পারটেক্স সেখানে টিকে থাকতে আপাতত: দলে ভেড়াতে পেরেছে ইরফান শুকুর, বিশ্বনাথ হালদারকে। তবে লিগ শুরুর দিনক্ষণ কিংবা দল বদলের তারিখ চূড়ান্ত না হয়েও ক্রিকেটার সংগ্রহে ক্লাবগুলোর এমন লড়াইয়ে রীতিমতো বিস্মিত সিসিডিএম সদস্য সচিব কাজী রাকিব হায়দার পাভেল ‘ক্লাবগুলো কবে থেকে লিগ খেলতে চায়, সেটাই তো এখনো জানা হলো না। তাছাড়া এবার পুল আছে কি-না, তাও তো বিসিবি থেকে জানানো হয়নি। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ফিরে আসার আগে প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ মাঠে গড়ানো সম্ভব নয়। এ বছর জাতীয় দলের যে ব্যস্ততা দেখছি, তাতে লিগের জন্য স্লট খুঁজে বের করাই তো দায়।’ শ্রীলঙ্কা সফর শেষে এপ্রিলের শেষ সপ্তাহ থেকে জুন পর্যন্ত বাংলাদেশ দল ইংল্যান্ডে কন্ডিশনিং ক্যাম্প, আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে টুর্নামেন্ট, আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে থাকবে ব্যস্ত। জুলাই মাসে পাকিস্তান, আগস্টে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল আসবে বাংলাদেশ সফরে, অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করবে বাংলাদেশ দল। নভেম্বরে তো বরাদ্দ আছে যথারীতি বিপিএল।
এখন প্রিমিয়ার ডিভিশনের জন্য স্লট কোথায়? এ প্রশ্ন পাভেলেরও। পরিস্থিতির মুখে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের বাদ দিয়ে বিগ বাজেটের দলগুলো লিগ খেলতে চাইবে কি না, সেটাও ভাবনার বিষয়। তবে দুইধাপে দল বদলের বিকল্প আইডিয়া মাথায় আছে পাভেলের ‘জাতীয় দলের বাইরে আছেন যারা, তাদের জন্য ১৫-১৬ মার্চ দল বদল দিতে পারি, জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা শ্রীলঙ্কা থেকে ফেরার পর তাদের জন্য দ্বিতীয় ধাপে দল বদলের আর একটি অনুষ্ঠান করা যেতে পারে।’ তবে সময়মতো লিগ শুরু হলেই হবে, কারণ জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের বেশিরভাগই প্রিমিয়ার লিগ খেলে সারা বছরের আয় করে থাকেন। এবার একটু বেশিই আয় হবে প্রিমিয়ার লিগে খেলা ক্রিকেটারদের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ