ঢাকা, বুধবার 02 August 2017, ১৮ শ্রাবণ ১৪২8, ৮ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মামলা নিয়ে তদন্ত কমিটিকে দিয়েছেন ৬ পাতার লিখিত বক্তব্য

স্টাফ রিপোর্টার : আলোচিত বরগুনা সদর উপজেলা নিবার্হী অফিসার (ইউএনও) গাজী তারিক সালমনকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে সিনিয়র সহকারী সচিব পদে পদায়ন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব আলিয়া মেহের স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ জারি করা হয়েছে। 

এদিকে একই দিন তার বিরুদ্ধে মামলা ও এর পরের ঘটনাপ্রবাহে আইনের কোনো ব্যত্যয় ঘটেছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে গঠিত তদন্ত কমিটির সামনে হাজির হয়ে ৬ পাতার লিখিত বক্তব্য দিয়েছেন তারিক সালমন। 

উল্লেখ্য, আমন্ত্রণপত্রে ছাপানো বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করার গত ৭ জুন বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট ওবায়েদুল্লাহ সাজু বাদী হয়ে ইউএনও গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে বরিশাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৫ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ চেয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় বিচারক ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে গাজী তারিক সালমনকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে সমন জারি করেন। এরপর গত ১৯ জুলাই তারিক সালমন আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন।

ওই দিন প্রথমে তার জামিন আবেদন প্রকাশ্যে নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বরিশালের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. আলী হোসাইন। এর দুই ঘণ্টা পর আবার তিনি গাজী তারিক সালমনের জামিন মঞ্জুর করেন। মামলাটিও ২৩ জুলাই প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।

এ ঘটনা নিয়ে জনপ্রশাসনে তোলপাড় ও বিভিন্ন মহলে সমালোচনা শুরু হলে প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত বিষয়টিতে বিষ্ময় প্রকাশ করেন। এর পর মামলার বাদী অ্যাডভোকেট ওবায়েদুল্লাহ সাজুকে আওয়ামী লীগের পদ থেকে বাদ দেয়া হয়। এছাড়া বরিশাল ও বরগুনার জেলা প্রশাসককে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

এদিকে, একই দিন তার বিরুদ্ধে মামলা ও এর পরের ঘটনাপ্রবাহে আইনের কোনও ব্যত্যয় ঘটেছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে গঠিত তদন্ত কমিটিকে লিখিত বক্তব্য দিয়েছেন তারিক সালমন। কমিটির সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তিনি বলেন, আমি আমার কথাগুলো স্যারদের জানিয়েছি। ৬ পাতার একটি লিখিত বক্তব্য জমা দেয়ার পর তারা কিছু প্রশ্ন করেছেন, সেগুলোর জবাব দেওয়ার চেষ্টা করেছি।

সালমনের সঙ্গে কথা বলা শেষে কমিটির প্রধান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব বজলুর করিম চৌধুরী বলেন, আমাদের ১৫ কার্যদিবস সময় দেয়া হয়েছে। আমরা সবগুলো দিক খতিয়ে দেখছি।

গত ২৪ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেছিলেন, গত ২২ জুলাই পাঁচ সদস্যর এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। কমিটির কাজ কী হবে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইউএনও’র বিষয়ে কোনো ক্ষেত্রে আইনের ব্যত্যয় হয়েছে কিনা, আইনের অপব্যবহার বা আইনের বাইরে কিছু হয়েছে কিনা সেগুলো দেখবেন তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ