ঢাকা, রোববার 29 October 2017, ১৪ কার্তিক ১৪২8, ৮ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

২৮ অক্টোবরের কালো অধ্যায়ের ক্ষত আজো বাংলাদেশ বয়ে বেড়াচ্ছে -হারুন-অর-রশিদ খাঁন

২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর আওয়ামী লীগের লগি- বৈঠার পৈশাচিক হামলায় শাহাদত বরণ কারী শ্রমিক নেতা রুহুল আমিন ও হাবিবুর রহমান সহ অন্যান্য শহীদদের স্মরণে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন ঢাকা মহানগরী উত্তরের উদ্যোগে গতকাল শনিবার রাজধানীর স্থানীয় একটি মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও দোয়ার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হারুন-অর-রশিদ খাঁন বলেন, ২৮ অক্টোবর লগি-বৈঠা দিয়ে শ্রমিক নেতা রুহুল আমিন ও হাবিবুর রহমান সহ ৮জন ছাত্র জনতাসহ ১৪ জনকে পিটিয়ে হত্যা করে আওয়ামী লীগ যে কালো অধ্যায়ের জন্ম দিয়েছে তার ক্ষত আজো বাংলাদেশ বয়ে বেড়াচ্ছে। সেদিনের খুনীরা আওয়ামী প্রশ্রয়ে আজো সক্রিয়। তারাই পরবর্তী সময়ে দেশ ও ইসলামপ্রিয় শ্রমিক ছাত্র-জনতা, আলেম উলামা, মহিলা, শিশু, বৃদ্ধের উপর গণহত্যা চালিয়েছে। প্রহসন করে গ্রেফতার করা হয়েছে শ্রমিক নেতাসহ অন্যান্য শীর্ষ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকেও।
হারুন-অর-রশিদ বলেন, ষড়যন্ত্রের জাল দিয়ে শহীদের রক্তকে ঢেকে দিতে অব্যাহত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বাতিল শক্তি। কিন্তু রুহুল আমিন ও হাবিবুর রহমানদের শাহাদাত বৃথা যায়নি। তাঁদের শাহাদাত থেকে শিক্ষা নিয়ে মানুষ ইসলামী শ্রমনীতি আন্দোলনের পথে এগিয়ে এসেছে।
মহানগরী উত্তরের সভাপতি লস্কর মোঃ তাসলিমের সভাপতিত্বে সেক্রেটারি মোঃ মহিবুল্লাহর পরিচালনায় এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন,শ্রমিক নেতা মোঃ আবুল হাসেম, মোশারফ হোসেন চঞ্চল,মোঃ আবু নাঈম, প্রমুখ।
ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ: শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সভাপতি মোঃ আব্দুস সালাম বলেছেন, ২৮ অক্টোবরের পৈশাচিক হত্যাকান্ড আমাদের জাতীয় জীবনের সকল অর্জনকে ম্লান করে দিয়েছে। আওয়ামী লীগের নির্দেশে লগি-বৈঠার সন্ত্রাসী তান্ডব চালিয়ে বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের গাজীপুর মহানগর সভাপতি রুহুল আমীন, শ্রমিক নেতা হাবিবুর রহমানসহ সেদিন পল্টনে একটি রাজনৈতিক দলের সমাবেশে ৮জন ছাত্র জনতা সহ ১৪ জন নেতা-কর্মীকে নির্মমভাবে হত্যা করে। আহত করে সহস্রাধিক নেতা-কর্মীকে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল প্রকাশ্য দিবালোকে লগি-বৈঠা দিয়ে পিটিয়ে মানুষ হত্যা করে লাশের উপর দানবীয় মাতম করা হয়েছে। কিন্তু ইতিহাসের এই বর্বরতম হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের বিচার আজোও করা হয়নি। ফলে হত্যাকারীরা রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা পেয়ে নানাবিধ অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে। তিনি সরকারকে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসে অবিলম্বে ২৮ অক্টোবরের খুনিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার আহ্বান জানান। অন্যথায় ইতিহাস তাদেরকে ক্ষমা করবে না।
গতকাল রাজধানীতে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ২৮ অক্টোবরের শহীদদের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শ্রমিক নেতা মোঃ খিজির আহমেদ এর পরিচালনায়, দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা এডভোকেট মোঃ ইদ্রিস, ইঞ্জিনিয়ার মিজানুর রহমান, মোঃ মশিউর রহমান প্রমুখ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ