ঢাকা, রোববার 29 October 2017, ১৪ কার্তিক ১৪২8, ৮ সফর ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাদকাসক্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন ৯১ জনের মৃত্যু

আইইউভিএম প্রেস : ‘ওপিয়য়িড ওভারডোস’ বা মরফিন, হিরোইন, ট্রামাডল, অক্সিকোডোন ও মেথাডোনের মত বিভিন্ন মাদক গ্রহণে প্রতিদিন যুক্তরাষ্ট্রে ৯১ জন মারা যায়। এ পরিস্থিতি দ্রুত সামলাতে দেশটির জাতীয় জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, প্রতিরোধ গড়ে তুলতে না পারলে আমাদের এ প্রজন্ম মাদকাসক্ত হয়ে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। গত বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প এ কথা বলেন।প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, এধরনের মহামারী জাতীয় স্বাস্থ্যখাতের জরুরি অবস্থার শামিল। কেউ কখনো আগে এমন পরিস্থিতি দেখেনি। যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হিসেবে আমরা এ পরিস্থিতি চলতে দিতে পারি না। মাদকদ্রব্যের যন্ত্রণা থেকে মুক্ত হওয়ার এটাই উপযুক্ত সময়। এটা কখনোই হতে দেওয়া যায় না। মাদকাসক্তের এ পরিস্থিতি চলতে থাকলে জাতি হিসেবে আমরা নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারি।১৯৯৯ সাল এধরনের মাদকাসক্তের সংখ্যা চারগুণ বেড়ে গেছে। ২০০০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ৫ লাখেরও বেশি মানুষ এধরনের মাদকাসক্ত হয়ে মারা যায়। দেশটির সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন বলছে গত বছর ৬৪ হাজার মানুষ এধরনের মাদকাসক্ত হয়ে মারা যায়। এ হিসেবে প্রতিদিন গড়ে মারা যায় ৯১ জন। এর আগের বছর ২০১৫ সালে মাদকাসক্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা সড়ক দুর্ঘটনা ও বন্দুকের গুলিতে মারা যাওয়া লোকের চেয়ে বেশি ছিল। ওই বছর প্রতিদিন গড়ে মাদকাসক্তে মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৪২।যুক্তরাষ্ট্রে ক্যান্সার, ব্যথা মুক্ত হতে অনেকে এধরনের মাদক গ্রহণ করার পর আসক্ত হয়ে পড়েন। মাদক বিক্রির বাজারও যুক্তরাষ্ট্রে মাল্টি বিলিয়ন ডলারের শিল্প হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফরচিউন সাময়িকী বলছে, ২০১০ সালে ২৫৪ মিলিয়ন ব্যক্তিকে এধরনের মাদক গ্রহণে চিকিৎসকরা পরামর্শপত্র দেন আর ওষুধ তৈরি প্রতিষ্ঠানগুলো ১১ বিলিয়ন ডলারের এধরনের ওষুধ বিক্রি করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ