ঢাকা, রোববার 19 August 2018, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অষ্টম দিনে বেড়েছে ফেরির সংখ্যা  পারাপার স্বাভাবিক হয়েছে

 

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) সংাদদাতা : শনিবার অষ্টম দিনে শিমুলিয়া ঘাটের অবস্থা অনেকটা উন্নতি হয়েছে। বহরে ফেরি সংখ্যা অনেকটা বৃদ্ধি পেয়েছে। ২১টি নিয়মিত ফেরির স্থলে গতকাল চলাচল করেছে ১৫টি ফেরি। সকালের দিকে ঘাটে দক্ষিণবঙ্গগামী গাড়ীর চাপ থাকলেও দুপুরের মধ্যেই তা হালকা হয়ে যায়। ছোট গাড়ী পারাপার করেও আটকে পড়া ট্রাক পার করেছে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। এতে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের সংখ্যাও কমতে শুরু করেছে গতকাল থেকে।

এসব তথ্য দিয়ে বিআইডব্লিউটিসির এজিএম শাহ খালেদ নেওয়াজ জানান, শনিবার সকাল থেকে পদ্মার লৌহজং ট্রানিং পয়েন্টের ডুবোচরের মুখ থেকে বিআইডব্লিউটিএ ড্রেজার সরিয়ে নেয়ায় নৌরুটে আরো ৬টি ডাম্ব ফেরি নামানো হয়েছে। ৬টি কে-টাইপ, ২টিমাঝারি ফেরির সঙ্গে আরো ৬টি ডাম্প ফেরি যুক্ত হওয়ায় এখন এ নৌরুটে ১৫টি ফেরি চলাচল করছে। তবে নৌরুটে যে পানি রয়েছে তা এখনও রো রো ফেরি চলাচলের উপযোগি নয়। আমরা যাত্রীদের নির্বিঘেœ পারাপারের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যদি ফেরিগুলো ওয়ানওয়ে রাস্তায় চলাচল করছে, তারপরেও পরিস্থিতি আগের থেকে অনেকটা স্বাভাবিক হয়েছে। তবে রো রো ফেরি চলাতে পারলে এ নৌরুটে ঈদে যাত্রীদের তেমন কোনো সমস্যায়ই পড়তে হবেনা।

এদিকে সকালের দিকে সিবোট ও লঞ্চ ঘাটে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। এসব যাত্রীরা ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে চলাচলরত লোকাল বাসে করে শিমুলিয়া ঘাটে এসে লঞ্চ ও সিবোট পদ্মা নদী পারি দিয়ে ওপড়ার থেকে বাস, মাইক্রো করে গন্তব্যে পৌঁছছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ