ঢাকা, রোববার 10 February 2019, ২৮ মাঘ ১৪২৫, ৪ জমাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

লতিফ সিদ্দিকীসহ ২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দুদকের

কালিহাতী (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা : সাবেক মন্ত্রী টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী আসনের সাবেক সাংসদ আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দুইজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় কমিশনের প্রধান কার্য্যালয়ে বৃহঃস্পতিবার ৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।
দুদক সূত্রে জানাযায়, তাদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই সংশ্লিষ্ট আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হবে।
অভিযোগে জানা যায়, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী থাকাকালে আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী ব্যক্তি স্বার্থে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য অর্পিত ক্ষমতার অপব্যবহার করে বাংলা বিক্রয়ের নীতিমালা ভঙ্গ করেন। তিনি উন্মুক্ত দরপত্র বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই একক সিদ্ধান্তে কমমূল্যে বিজেসি’র ২ দশমিক ৩৮ একর সরকারি সম্পত্তি ২০১০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে জনৈক্য জাহানারা রশিদের নিকট বিক্রি করে।
চার্জশিটে উল্লেখ্য, আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী এবং ক্রেতা বেগম জাহানারা রশিদ পারস্পারিক যোগসাজশে দরপত্র বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই বেআইনিভাবে বাংলদেশজুট কর্পোরেশনের জমি বিক্রয় করে সরকারের ৪০ লাখ ৬৯ হাজার ২১ টাকা ক্ষতি সাধনের অপরাধে দুর্নীতি দমন কমিশন তাদের বিরুদ্ধে এ চার্জশিটের অনুমোদন দেয়।
বেগম জাহানারা রশিদ বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশনের সুরুজমল আগরওয়ালা (রানী নগর ক্রয় কেন্দ্র) নামের ২ দশমিক ৩৮ একর সরকারি সম্পত্তি স্থায়ীভাবে বরাদ্দের জন্যদেশ জুট কর্পোরেশনের (বিজেসি) আওতাধীন সরকারি সম্পত্তি
২০১০ সালের ১১ মে পূর্ব পরিচিত মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় বরাবরে আবেদন করেন। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজেসির আওতাধীন সরকারি সম্পত্তি বিক্রয়ের নীতিমালা ভঙ্গ করে উন্মুক্ত দরপত্র বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই একক সিদ্ধান্তে ৬৪ লাখ ৬৩ হাজার ৭৯৫ টাকা মূল্যের সরকারি সম্পত্তি অপর আসামী বেগম জাহানারা রশিদের নিকট বেআইনিভাবে ২৩ লাখ ৯৪ হাজার ৭৭৪ টাকায় বিক্রয় করে।
দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ আমিনুল ইসলাম ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর বগুড়া জেলার আদমদিঘী মামলাটি দায়ের করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ