ঢাকা,বৃহস্পতিবার 19 December 2019, ০৪ পৌষ ১৪২৬, ২১ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

জামালপুর-টাঙ্গাইল রেলপথে ট্রেন চালুর আবেদন

জামালপুর ও টাঙ্গাইল পাশাপাশি দুটি জেলা। প্রতিদিন এ দুটি জেলার যাত্রীরা বিভিন্ন গন্তব্যে চলাচল করে থাকে। ইদানিং সড়ক পথে চলাচলে ভোগান্তির শেষ নেই। যারা নিয়মিত চলাচল করে থাকে একমাত্র তারাই বলতে পারবে ভোগান্তির অবস্থা কত বেদনাদায়ক ও অস্বস্তিকর। অথচ আপামর যাত্রী সাধারণ নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য রেলকেই বেশি পছন্দ করে থাকেন। কিন্তু পরিতাপের বিষয় জামালপুর হতে টাঙ্গাইল স্টেশনে যাতায়াতের জন্য কোন ট্রেন নেই, অথচ ট্রেনে যাতায়াতের জন্য যাত্রীর অভাব নেই। জগন্নাথগঞ্জ ঘাট হতে টাঙ্গাইল জেলার ভূয়াপুর হয়ে বঙ্গবন্ধু পূর্বসেতু স্টেশন (ইবরাহিমাবাদ) পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মিত হয়েছে। ময়মনসিংহ হতে পূর্বসেতু সেতু পর্যন্ত ধলেশ্বরী এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করে দিনে মাত্র একবার। চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহী এক্সপ্রেস ট্রেনও সময় মেনে চলে না। এ ট্রেন দুটির মাধ্যমে যাত্রী সাধারণ উপকৃত হয় না। প্রতিদিন ঢাকা স্টেশন হতে বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলে টাঙ্গাইল হয়ে সকালে ও বিকেলে বেশ কিছু ট্রেন ছেড়ে আসে। এ সব টেনে ভূয়াপুর, হেমনগর, জগন্নাথগঞ্জ ঘাট, তারাকান্দি, সরিষাবাড়ী, জাফরশাহী, কেন্দুয়া বাজার ও জামালপুর টাউন স্টেশনের অনেক যাত্রী থাকেন। কিন্তু বেশির ভাগ সময়ইএ রুটের যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েন। কারণ যাত্রীরা স্টেশনে নেমে দেখেন ধলেশ্বরী ও রাজশাহী এক্সপ্রেস ময়মনসিংহের উদ্দেশে ছেড়ে গেছে। ঢাকা হতে ছেড়ে আসা ট্রেনগুলো ক্রসিংয়ে পড়লে নির্দিষ্ট সময়ে পূর্বসেতু সেতু স্টেশনে পৌছতে পড়ে না। এর ফলে যাত্রী সাধারণ বিকল্প হিসেবে বাস কিংবা অটো রিকশা যোগে গন্তব্যে পৌছার চেষ্টা করেন। অপর দিকে যারা খুলনা ও উত্তর বঙ্গ হতে ছেড়ে আসা ট্রেনে এসে সেতু স্টেশনে নেমে জামালপুর যেতে চান তারাও ধলেশ্বরী ও রাজশাহী এক্সপ্রেস না পেয়ে সমস্যায় পড়েন। এ সমস্যার সমাধানে জামালপুর ও টাঙ্গাইল স্টেশন পর্যন্ত সকাল ও বিকালে অন্তত দুটি ট্রেন চালু করা দরকার। প্রতিদিন সড়ক পথে জামালপুর ও টাঙ্গাইল পর্যন্ত প্রচুর লোক চলাচল করে। এ রেলপথে ট্রেন চালু হলে সড়ক পথে চাপ কমবে ও যাত্রীরা উপকৃত হবে। এছাড়া জামালপুর হতে বঙ্গবন্ধু পূর্বসেতু স্টেশন (ইবরাহিমাবাদ) পর্যন্ত সকাল বিকাল অন্তত দুই জোড়া শাটল ট্রেন চালু করলেও যাত্রীরা উপকৃত হবে। তেমনিভাবে বাংলাদেশ রেলওয়েও আর্থিকভাবে লাভবান হবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। র ম আওরঙ্গজেব, সরিষাবাড়ী, জামালপুর।

 

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ