ঢাকা, সোমবার 24 February 2020, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

গণহত্যার অভিযোগ মানতে নারাজ মিয়ানমার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: আন্তর্জাতিক বিচার আদালত মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠি দেশটির সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের উপর যে হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে তাকে গণহত্যার শামিল বলে রায় দিলেও কোন গণহত্যা হয়নি বলে আবারো দাবি করেছে দেশটির সামরিক সমর্থিত সরকার।

আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ ঘোষণার পরে বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এমনটি দাবি করা হয়।রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে মামলা করে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। 

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, মিয়ানমারের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ যে আন্তর্জাতিক আদালত মামলার গ্রহণযোগ্যতা অনুধাবন করে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে সঠিক সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে আরো বলা হয়, রাখাইনে কোনো গণহত্যা হয়নি।একটি বিকৃত ছবি তুলে ধরা হয়েছে ।

এদিকে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে রাখাইনে গণহত্যা নিয়ে রায়ের পর রায়ের প্রতিক্রিয়ায় মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের রায় সম্পর্কে বলা হয়, এই রায় পুরো বিশ্বকে জানিয়ে দিয়েছে যে মিয়ানমারের নৃশংসতা সহ্য করা হবে না। এছাড়া গাম্বিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে তারা রাখাইনে গণহত্যার রায় নিয়ে সন্তুষ্ট।

২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোগত সহিংসতা জোরদার করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। দেশটির সেনাবাহিনী রাখাইনে হত্যাকাণ্ড, সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ শুরু করলে জীবন বাঁচাতে নতুন করে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। 

গত বছরের নভেম্বরে আইসিজেতে মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যা বন্ধে ব্যবস্থা নিতে মামলাটি দায়ের করে গাম্বিয়া। আর সেই মামলার ভিত্তিতেই বৃহস্পতিবার অন্তবর্তীকালীন আদেশ দেয় জাতিসংঘের আদালত। আদেশে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়, রোহিঙ্গাদের যা করা হয়েছে তা গণহত্যার শামিল।

ডিএস/এএইচ

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ