ঢাকা, সোমবার 24 February 2020, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

রংপুর সিটির উন্নয়নে ১১৪ কোটি টাকার প্রকল্প প্রস্তাব

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় রংপুর সিটি করপোরেশনের রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য ১১৪ কোটি টাকার যানবাহন ও যন্ত্রপাতি ক্রয় প্রকল্প প্রস্তাব পেশ করবে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়।আগামীকাল মঙ্গলবার একনেক বৈঠকে এ প্রস্তাব উত্থাপন করা হবে বলে জানা গেছে।পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পরিকল্পনা কমিশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অনুমোদন পেলে আগামী ২ বছরে যন্ত্রপাতি কেনার মাধ্যমে রংপুরের সড়ক ও নর্দমা উন্নয়ন, সংস্কার, রক্ষণাবেক্ষণ ব্যবস্থাকে দক্ষ ও কার্যকর করা, বর্জ্য পরিবহণের দক্ষতা বৃদ্ধি ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সহজ করা হবে। স্থানীয় সরকার বিভাগ মনে করছে, এর সুফল ভোগ করবে নগরবাসী।

তারা আরো জানান, প্রকল্পটির প্রস্তাব পাওয়ার পর ২০১৯ সালের ১৮ জুলাই প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় দেওয়া সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন করে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) পুণর্গঠন করা হয়েছে। এখন জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আগামী সভায় এটি উপস্থাপন করা হবে। অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে ২০২১ সালের জুনের মধ্যে  প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে রংপুর সিটি করপোরেশন (আরপিসিসি)।

এ বিষয়ে প্রকল্পটির দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য শামীমা নার্গিস বলেন, ‘প্রস্তাবিত প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে রংপুর সিটি করপোরেশনের যানবাহন ও যান্ত্রিক ব্যবস্থা শক্তিশালী হবে, সড়ক ও নর্দমার উন্নয়ন, সংস্কার, রক্ষণাবেক্ষণ ব্যবস্থা দক্ষ ও কার্যকর হবে, বর্জ্য পরিবহণের দক্ষতা বৃদ্ধি ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সহজতর, পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনা দক্ষতার সাথে করা সম্ভব হবে।’

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, ২০১০ সালে বিভাগ ঘোষণার পর ২০১২ সালের ২৮ জুন রংপুর সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠা করা হয়। বর্তমানে এই সিটির রাস্তা-ঘাট, ড্রেন ও ফুটপাতের অবস্থা খুবই খারাপ। এছাড়া বর্জ্য ও পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনাও নাজুক অবস্থায় রয়েছে। এরমধ্যে একটি উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে কিছু রাস্তার উন্নয়ন করা হয়েছে এবং সম্প্রতি অনুমোদিত অন্য একটি প্রকল্পের মাধ্যমে বেশ কিছু রাস্তা, ফুটপাত ও ড্রেনের উন্নয়ন করা হবে। এ সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্য বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতির প্রয়োজন। কিন্তু রংপুর সিটি করপোরেশনে কাজ করার মত পর্যাপ্ত যন্ত্রপাতি নেই। কাঁচা রাস্তা পাকা করা, রাস্তার প্রশস্ততা বাড়ানো, গার্বেজ সংগ্রহ ইত্যাদি কাজের জন্য কিছু সংখ্যক যন্ত্রপাতি জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজন। তাছাড়া বিশাল আকারের সিটির জন্য একটি অ্যাসফল্ট প্ল্যান্ট স্থাপন করা জরুরি। এতে যেমন রাস্তা ঘাটের কার্যক্রমের গুণগতমান বজায় থাকবে তেমনি কাজ দ্রুত হবে এবং সিটি করপোরেশনের মাধ্যমে রাজস্ব আয়ও বাড়বে। সব মিলিয়েই রংপুর সিটি করপোরেশনের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করা প্রয়োজন।

প্রকল্পের মূল কার্যক্রম হচ্ছে, একটি অ্যাসফল্ট মিক্সিং প্ল্যান্ট, দুইটি রেডি মিক্স কংক্রিট ক্যারিয়ার, একটি পেভার ফিনিশার, একটি মটর গ্রেডার, দুইটি এক্সাভেটর, একটি ভেকুয়াম সেপটিক ট্যাঙ্ক ক্লিনার, ১০টি গারবেজ, একটি ড্রেন ক্লিনিং জেট অ্যান্ড সাকার মেশিন এবং টায়ার রোড রোলার ক্রয় করা হবে।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ