ঢাকা, সোমবার 24 February 2020, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমিনকে ৩ বছরের কারাদণ্ড

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:সম্পদের হিসাব বিবরণী জমা না দেওয়ায় ডেসটিনি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মাদ রফিকুল আমীনের তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তার ৫০ লাখ টাকা অর্থদণ্ডও করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ঢাকার ৮ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শামীম আহাম্মদ এ রায় ঘোষণা করেন।

২০১৬ সালের ৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর রমনা মডেল থানায় মামলাটি করেছিল দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

প্রায় চার হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে করা মামলায় ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর কারাগারে যান রফিকুল আমীন। তখন থেকেই তিনি কারাগারে রয়েছেন।

জানা যায়, ২০১২ সালের ৩১ জুলাই রফিকুল আমিন ও মোহাম্মদ হোসেনসহ ডেসটিনি গ্রুপের ২২ জনের বিরুদ্ধে রাজধানীর কলাবাগান থানায় দু’টি মামলা করে দুদক। ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ (এমএলএম) ও ট্রি-প্ল্যানটেশন প্রকল্পের নামে গ্রাহকদের কাছ থেকে সংগৃহীত অর্থের মধ্যে ৩ হাজার ২৮৫ কোটি ২৫ লাখ ৮৮ হাজার ৫২৪ টাকা আত্মসাৎ করে পাচারের অভিযোগে মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে মামলা দু’টি করা হয়। একই বছরের গত ১১ অক্টোবর ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন। বর্তমানে এ মামলায় দু’জনই কারাগারে রয়েছেন।

২০১৬ সালের ১৬ জুন কারাগারে থাকাকালীন সময়ে ওই দুই মামলায় রফিকুল আমিনের জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ১৮ কোটি ২ লাখ ২৯ হাজার ৩২৩ টাকার সম্পদের হিসাব চেয়ে নোটিশ দেয় দুদক। সাত দিনের মধ্যে তাকে তথ্য বিবরণী জমা দিতে বলা হয়। তিনি সম্পদের তথ্য বিবরণী দাখিলের জন্য সময়ের আবেদন করলে তাকে আরও সাত দিন সময় বেঁধে দেওয়া হয়। তারপরও আদালতে বিবরণী দাখিল না করায় ২০১৬ সালের ৮ সেপ্টেম্বর রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করে দুদক।

২০১৭ সালের ৬ জুন এই মামলার চার্জশিট আদালতে দাখিল করে দুদক। পরে ২০১৮ সালের ১২ মার্চ চার্জগঠন করে মামলার বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ