ঢাকা, মঙ্গলবার 4 February 2020, ২১ মাঘ ১৪২৬, ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

ওআইসির বৈঠকে ইরানীদের ভিসা দেয়নি সৌদী

৩ ফেব্রুয়ারি, রয়টার্স, ফার্স নিউজ এজেন্সি : গতকাল সোমবার সৌদি আরবের জেদ্দায় হতে যাওয়ার ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) বৈঠকে অংশ নিতে ভিসা মেলেনি ইরানের।

ইরানি প্রতিনিধিদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে তাদের ভিসা দেয়নি সৌদি কর্তৃপক্ষ।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের বরাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

গতকাল সোমবারের ওই বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মুসাভি বলেছেন, ওআইসির সদর দফতরে ট্রাম্পের ‘ডিল অব সেঞ্চুরি’ প্রস্তাব নিয়ে যে বৈঠক রয়েছে, যেখানে অংশ নিতে আমাদের কর্মকর্তাদের ভিসা ইস্যু করেনি সৌদি আরব।

সৌদির এমন আচরণের বিষয়ে ওআইসির কাছে ইরান অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানান মুসাভি।

মুসাভি অভিযোগ করেন, সদর দফতরের নিমন্ত্রণকর্তা হিসাবে সৌদি তাদের অবস্থানের অপব্যবহার করেছে।

তবে ইরানের এসব অভিযোগের বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি সৌদি কর্তৃপক্ষ।

এদিকে গতকাল মধ্যপ্রাচ্যের দীর্ঘ দিনের ফিলিস্তিন সংকট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্র ঘোষিত কথিত ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’র বিরুদ্ধে মুসলিম বিশ্বকে কঠোর অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইরান ও তুরস্ক।

দু’দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এক টেলিফোন আলাপে এ আহ্বান জানান বলে খবর দিয়েছে তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু।

প্রসঙ্গত ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যকার দ্বন্দ্ব-সংঘাত নিরসনের লক্ষ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত ২৮ জানুয়ারি ‘ডিল অব দ্যা সেঞ্চুরি’ প্রকাশ করেন। ১৮১ পৃষ্ঠার মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনায় জেরুজালেম শহরকে ইসরাইলের অবিভক্ত রাজধানী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। ট্রাম্পের এই পরিকল্পনায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের তাদের মাতৃভূমিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

সেই সঙ্গে জর্দান নদীর পশ্চিমতীরের মাত্র ৭০ শতাংশ ভূমি ও গাজা উপত্যকা নিয়ে একটি দুর্বল ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনের কথা বলা হয়েছে। ফিলিস্তিনের শাসক ও জনগণ এই কথিত শান্তি পরিকল্পনা ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে। এই পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়ে দেশটিতে চলছে বিক্ষোভ। ট্রাম্পের প্রস্তাবের পর ইরান এর নিন্দা জানালেও যুক্তরাষ্ট্রের মিত্রদেশ সৌদি আরব ও মিসর ট্রাম্পের এই প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছেন। তারা প্রস্তাবনাটির বিষয়বস্তু সম্পর্কে মন্তব্য না করেই নতুন করে আলোচনার আহ্বান জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ