ঢাকা, বৃহস্পতিবার 13 February 2020, ৩০ মাঘ ১৪২৬, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

এত বড় অর্জন আমরা অতীতে পাইনি : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

 

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিশ্বকাপ জয়ী বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ দলকে বরণ করে নিতে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে হাজির হয়েছিল হাজার হাজার  ক্রিকেট পাগল জনতা। ব্যানার, পোস্টার, প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন, জার্সি এবং জাতীয় পতাকা হাতে ক্রিকেটপ্রেমীরা ‘আকবর, আকবর’ কিংবা ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ শ্লোগানেও মুখরিত করে তোলে বিমানবন্দর প্রাঙ্গন। আকবর আলিদের বরণ করে নিতে বিমানবন্দরে হাজির হয়েছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ বিসিবি কর্মকর্তারা। বিমান থেকে নেমে আসার পর ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় বিশ্বজয়ী ক্রিকেটারদের।এসময় উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেছেন, ‘বাংলাদেশ দল যে সাফল্য অর্জন করেছে, ইতিহাসে এত বড় অর্জন আমরা অতীতে পাইনি। আমাদের দামাল ছেলেরা আমাদের জন্য যে সম্মান বয়ে এনেছে, অবশ্যই আমরা এ অর্জনে যারপর নাই আনন্দিত।’ গতকাল বুধবার মিরপুরে শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে যুবা টাইগারদের বরণ করা হয়। তার আগে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে খেলোয়াড়দের অভ্যর্থনা জানানো হয়। বিকেল ৪টায় সেখানে উপস্থিত হন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। উপস্থিত সাংবাদিকরা তার অনুভূতি জানতে চাইলে এসব কথা বলেন তিনি।জাহিদ আহসান বলেন, ‘আমরা গর্বিত তাদের এই অর্জনে, কারণ তারা আমাদের দেশকে বিশ্বের কাছে সম্মানের আসনে আসীন করেছে। আমরা তাদের প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাই। আমরা মনে করি, ভবিষ্যতে যদি এই ধারা অব্যাহত থাকে তাহলে আমাদের ক্রিকেট অনেক দূর এগিয়ে যাবে।’ এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এই ক্রিকেটারদের আমাদের পরিচর্যা করতে হবে। বিসিবি কিন্তু তাদের বিশেষ পরিচর্যা করেছে। তারা আমাদের দেশের সম্পদ। ভবিষ্যতে তারা জাতীয় দলে সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে খেলবে; তারা যাতে হারিয়ে না যায়, সে লক্ষ্যে আমাদের পক্ষ থেকে যত রকম উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন আমরা সেটা করবো। তাদেরকে বিশ্বমানে উন্নীত করতে  সরকারের পক্ষ থেকে করণীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। সরকারের পক্ষ থেকে যুবা ক্রিকেটারদের সংবর্ধনা সম্পর্কিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তেরে মন্ত্রী বলেন,‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী শুক্রবার খেলোয়াড়দের একটি সংবর্ধনা দেওয়ার তারিখ নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন। কিন্তু ক্রিকেটাররা এতদিন জার্নি করে এসেছে। তারা নিজ নিজ বাড়ি যাবেন। তাই সময়টাকে বৃদ্ধি করতে বিসিবি থেকে বলা হয়েছিল। যে কারণে আমরা আশা করছি, আগামী শুক্রবারের মধ্যে যেকোনো একদিন প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ক্রিকেটারদের সংবর্ধনা প্রদান করবো।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ