ঢাকা, মঙ্গলবার 17 March 2020, ৩ চৈত্র ১৪২৬, ২১ রজব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

নাইজেরিয়ায় গ্যাস পাইপলাইন বিস্ফোরণে নিহত ১৫

১৬ মার্চ, রয়টার্স : নাইজেরিয়ার বাণিজ্যিক রাজধানীর লাগোসের উপকন্ঠে একটি গ্যাস প্রসেসিং প্ল্যান্টে ভয়াবহ বিস্ফোরণে অন্তত ১৫ জন নিহত ও প্রায় ৫০টি ভবন ধ্বংস হয়েছে। গ্যাস প্ল্যান্টে বিস্ফোরণের পর সেখানে মারাত্মক রকমের অগ্নিকা- ছড়িয়ে পড়ে।

নাইজেরিয়ার ন্যাশনাল পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন জানিয়েছে, কয়েকটি গ্যাস সিলিন্ডারে একটি ট্রাক ধাক্কা দিলে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এলাকাটিতে ন্যাশনাল পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের পাইপলাইন রয়েছে।

নাইজেরিয়ার জাতীয় জরুরি ব্যবস্থাপনা সংস্থার আঞ্চলিক সমন্বয়ক ইব্রাহিম ফারিনলোয়ে জানান, বিস্ফোরণে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন এবং তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন তেল কোম্পানির পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিস্ফোরণের ফলে আশপাশের বহুসংখ্যক ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে এবং পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের পাইপলাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিস্ফোরণের কারণে জাতীয় পর্যায়ে তেলজাত পণ্য পরিবহনের পাইপলাইন সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে তবে এর বড় কোনো প্রভাব পড়বে না। নাইজেরিয়া হচ্ছে আফ্রিকা মহাদেশের সবচেয়ে বড় তেল উৎপাদনকারী দেশ। সেখানে পাইপলাইনে বিস্ফোরণে অনেকটা সাধারণ ঘটনা।

রোববার লাগোসের আবুলে আদো এলাকার পাইপলাইনের কাছে প্ল্যান্টে জড়ো করে রাখা কিছু সিলিন্ডারকে একটি ট্রাক ধাক্কা দিলে এ বিস্ফোরণ হয় বলে নাইজেরিয়ার ন্যাশনাল পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (এনএনপিসি) জানিয়েছে।

বিষ্ফোরণে আশপাশের বেশ কয়েকটি ভবন ধ্বসে পড়ে এবং এনএনপিসির পাইপলাইনটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা।

রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত তেল কোম্পানি পরে এক বিবৃতিতে অ্যাটলাস কোভে-মোসিমি পাইপলাইনের কার্যক্রম স্থগিত করার কথা জানায়।  

এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, বিষ্ফোরণের পর প্ল্যান্ট ও এর আশপাশের এলাকা ধোঁয়ায় ছেয়ে গেলে উৎসুক জনগণ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে; খবর পেয়ে ছুটে আসা দমকল বাহিনীর সদস্যরা আগুন নেভাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

ফারিনলোয়ে বলেন, বিস্ফোরণ এবং এরপর ছড়িয়ে পড়া আগুনে প্ল্যান্টের আশপাশের ৫০টিরও বেশি আবাসিক বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

মূলত চুরি ও নাশকতার কারণেই আফ্রিকার সবচেয়ে বেশি অপরিশোধিত তেল উৎপাদক দেশ নাইজেরিয়ার বিভিন্ন পাইপলাইনে প্রায়ই অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে; যেসব পদ্ধতি অবলম্বনে চুরি হয়, সেগুলোতে সৃষ্ট দুর্ঘটনার কারণেই অগ্নিকা- হয় বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

“ধোঁয়াসহ আগুন দেখতে পাই; ধোঁয়া এগিয়ে আসতে থাকে, পরে আমরা একটি শব্দ শুনি; এরপর কিছু বাড়ি ছাদসহ ধ্বসে পড়ে,” বলেন এক প্রত্যক্ষদর্শী।

এনএনপিসি জানিয়েছে, অ্যাটলাস কোভে-মোসিমি পাইপলাইনের কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ থাকলেও তা লাগোস এবং আশপাশের এলাকায় জ্বালানি পণ্যের স্বাভাবিক সরবরাহে বিঘœ ঘটাবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ