ঢাকা, শুক্রবার 27 March 2020, ১৩ চৈত্র ১৪২৬, ১ শাবান ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

মহান স্বাধীনতা দিবসে জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানদের শুভেচ্ছা

স্টাফ রিপোর্টার: স্বাধীনতার ঘোষণা ও মুক্তিযুদ্ধের সূচনার এই সময়টি জাতি নিবিড় আবেগের সঙ্গে স্মরণ করে। কিন্তু এবার এমন এক সময়ে ৪৯তম স্বাধীনতা দিবস সামনে এল, যখন নভেল করোনা ভাইরাসের ব্যাপক সংক্রমণের কারণে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্ব আক্রান্ত। এই কারণে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু ভবনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোসহ সব জাতীয় কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে। কর্মসূচি বাতিল হলেও মহান স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানরা।

জাতিসংঘ: বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশি নাগরিকদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেজ। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে পাঠানো এক বার্তায় তিনি এ শুভেচ্ছা জানান। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

বার্তায় জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে দেশটির জনগণকে আমি শুভেচ্ছা জানাই। জাতিসংঘের প্রতিটি সদস্যের স্বতন্ত্র সংস্কৃতি ও ইতিহাস রয়েছে। আপনার দেশের জাতিসংঘের সঙ্গে সম্পৃক্ততা ও আন্তর্জাতিক এজেন্ডা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ বছর টেকসই উন্নয়নের প্রথম দশকে আমরা অবশ্যই বৈশ্বিকভাবে আমাদের লক্ষ্য অর্জনে এগিয়ে যাবো। তিনি আরও বলেন, আমি শান্তিপূর্ণ ও টেকসই বিশ্ব গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশের সমর্থন ও সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানালেন ট্রাম্প: বাংলাদেশের ৪৯তম স্বাধীনতা বার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও জনগণকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদকে পাঠানো এক বার্তায় গত বুধবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের পক্ষ থেকে আমি বাংলাদেশের ৪৯তম স্বাধীনতা বার্ষিকী উপলক্ষে এবং ২০২১ সালে সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনের আগে আপনারা যখন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন করছেন তখন আপনাকে এবং দেশের জনগণকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে অভুতপূর্ণ অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, রক্তক্ষয়ী ও বিধ্বংসী স্বাধীনতা যুদ্ধের পর বিগত ৪৯ বছরে বাংলাদেশ ঈর্ষণীয় উন্নতির সঙ্গে এগিয়ে চলছে এবং কৃষি ও শিল্প খাতে প্রবৃদ্ধি অর্জন করছে।

তিনি আরো বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উন্নয়নের এ ধারায় একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার এবং আমাদের উভয় দেশের অর্থনীতি দু’দেশের জনগণের সমৃদ্ধিতে অবদান রাখায় আমি গর্বিত। ট্রাম্প এক মিলিয়নেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দেয়ায় বাংলাদেশের উদারতার প্রশংসা করেন এবং শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক দাতা হিসেবে সংকট উত্তরণে সহায়তা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, বাংলাদেশের ভবিষ্যত সাফল্য অর্জনে এবং আগামী বছরগুলোতে আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

স্বাধীনতা দিবসে পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা: বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। গতকাল বৃহস্পতিবার এক চিঠির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট এ শুভেচ্ছা বার্তা প্রেরণ করেন ইমরান খান।

শুভেচ্ছা বার্তায় ইমরান খান বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের জাতীয় দিবস উপলক্ষে পাকিস্তানের জনগণ, সরকার ও আমার (ইমরান খান) পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।

ইমরান খান বলেন, পারস্পরিক বোঝাপড়া ও শ্রদ্ধার ভিত্তিতে পাকিস্তান বাংলাদেশের সাথে তার সম্পর্ক আরও মজবুত ও জোরদার করতে চায়। দুই দেশের মধ্যেই আঞ্চলিক শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের সাধারণ আকাঙ্খা রয়েছে। তিনি আরও বলেন, এইসব সাধারণ বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে আমরা ভবিষ্যতে আমাদের সহযোগিতার সূচনা আরও মজবুত করতে পারি। একইসাথে, বাংলাদেশের ভ্রাতৃপ্রতিম মানুষের জন্য অব্যাহত শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করি। প্রসঙ্গত, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর থেকে বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক ক্ষেত্রে ক্রমশঃ উন্নয়ন হয়েছে। আর্থ সামাজিক উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে রোল মডেল।

স্বাধীনতা দিবসে ভারতীয় হাইকমিশনের শুভেচ্ছা: বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছে ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন। ভারতীয় হাইকমিশনের এক বার্তায় এ শুভেচ্ছা জানানো হয়। এৎববঃরহমং ড়হ #ওহফবঢ়বহফবহপবউধু শিরোনামের ওই শুভেচ্ছা বার্তাটি গতকাল বৃহস্পতিবার ভারতীয় হাইকমিশনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে প্রকাশিত হয়। ওই শুভেচ্ছা বার্তায় বলা হয়, স্বাধীনতা দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

জাতিসঙ্ঘের অভিবাসন সংস্থা আইওএম: জাতিসঙ্ঘের অভিবাসন সংস্থা আইওএম বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতিসঙ্ঘের অভিবাসন সংস্থা আইওএম বাংলাদেশের অফিসিয়াল ফেইসবুক ও টুইটার পেইজে এই শুভেচ্ছা জানায়। আইওএম বাংলাদেশ শুভেচ্ছা বার্তায় বলেন, এবারের স্বাধীনতা দিবসের অঙ্গীকার হোক করোনা থেকে সুরক্ষার। #ওহফবঢ়বহফবহপবউধু #ঈড়ৎড়হধঠরৎঁং 

স্বাধীনতা দিবসে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শুভেচ্ছা: বাংলাদেশের ৪৯তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকায় অবস্থিত দেশটির দূতাবাস এ তথ্য জানিয়েছে।       

বিবৃতিতে পম্পেও লিখেন, যুক্তরাষ্ট্র সরকার ও আমেরিকার জনগণের পক্ষ থেকে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে আমি বাংলাদেশের জনগণকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা পাঠাচ্ছি, যখন আপনারা ২০২১ সালের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর প্রাক্কালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করেছেন। তিনি আরো লিখেন, গত ৪৯ বছরে, যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশ বিস্তৃত পরিসরে পরস্পর-সংযুক্ত টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন, আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা এবং শান্তি রক্ষা কাজে প্রগাঢ় বন্ধুত্ব এবং নিবিড় সহযোগিতা উপভোগ করেছে।

আমাদের উভয় দেশের জনগণের বন্ধনকে আরো জোরদার ও নিবিড় করার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক সমৃদ্ধির প্রচেষ্টা এবং আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তার অঙ্গীকারকে যুক্তরাষ্ট্র সহায়তা প্রদান অব্যাহত রাখবে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও লিখেন, বাংলাদেশ যখন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া কোভিড-১৯ এর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে তখন আমরা আমাদের বন্ধু ও সহযোগী রাষ্ট্র বাংলাদেশের পাশে আছি। এই বিশেষ ক্ষণে, গুরুত্বপূর্ণ এই দিনটি উদযাপন করায় আমি সব বাংলাদেশিকে অভিবাদন জানাই।

স্বাধীনতা দিবসে ঢাকাস্থ ব্রিটিশ হাইকমিশনারের শুভেচ্ছা: বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন। ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশনের এক ভিডিও বার্তায় তিনি এই শুভেচ্ছা জানান।

গতকাল বৃহস্পতিবার ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশের সব বন্ধুকে একটি কথা বলতে চাই, সেটা হলো- সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা। ব্রিটিশ হাইকমিশনার বাংলাভাষায় স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানান।

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা ঢাকাস্থ আমেরিকার রাষ্ট্রদূত মিলার: বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত আমেরিকার রাষ্ট্রদূত মিলার। (গতকাল বৃহস্পতিবার) আজ বাংলাদেশের ৪৯তম স্বাধীনতা দিবসে রাষ্ট্রদূত মিলার বাংলাদেশের জনগণের উদ্দেশে একটি বিশেষ বার্তা দিয়েছেন-স্বাধীনতার ৪৯তম বার্ষিকীতে আমি বাংলাদেশের জনগণকে অভিনন্দন জানাতে চাই। সেইসঙ্গে ২০২১ সালে আপনাদের সুবর্ণজয়ন্তীকে সামনে রেখে এ বছর জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবর্ষ পালনেও আপনাদের শুভেচ্ছা জানাই

মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশি জনগণ একটি হুমকির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল এবং বিস্ময়কর দৃঢ়তা, শক্তিমত্তা ও ঘুরে দাঁড়াবার ক্ষমতা দেখিয়েছিল। আজ যখন পুরো বিশ্ব নতুন এক হুমকির মুখোমুখি  করোনাভাইরাস, কোভিড-১৯ এই রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে একে অপরকে সুরক্ষিত করতে বাংলাদেশিদের সেই একই গুণাবলী প্রদর্শন করতে হবে।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ