ঢাকা, শুক্রবার 27 March 2020, ১৩ চৈত্র ১৪২৬, ১ শাবান ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

২৫ মাস ২৭ দিন পর বাসায়  ফিরলেন রিজভী 

 

স্টাফ রিপোর্টার : ২০১৮ সালের ৩০ জানুয়ারি। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মামলার রায় আসন্ন। চারদিকে চলছে ধরপাকড়! ইতোমধ্যে দলটির বেশ কয়েকজন মধ্যম সারির নেতা গ্রেফতার হয়েছেন। মাঠ-পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে চরম আতঙ্ক। ঠিক সেই সময় ‘লোটা-কম্বল’ নিয়ে নয়াপল্টন কার্যালয়ে হাজির দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী! এর আট দিন পর আদালতের দেওয়া রায়ে পাঁচ বছর সাজা হয় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার। এ ঘটনায় মর্মাহত রিজভী প্রেস কনফারেন্সে এসে কান্নাজড়িত কণ্ঠে ঘোষণা দেন, ‘যতদিন পর্যন্ত ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) কারাগারে থাকবেন, ততোদিন পর্যন্ত দলীয় কার্যালয়ে স্বেচ্ছাবন্দী থাকব আমি।’

কথা রেখেছেন রিজভী! বুধবার (২৫ মার্চ) বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত টানা ২৫ মাস ২৭ দিন নয়াপল্টন কার্যালয়ে অবস্থান করেছেন তিনি। নানা সংকট, উৎসব, আয়োজন, অসুস্থ, ধরপাকড় কোনো কিছুকেই আমলে নেননি রিজভী। কার্যালয়ের ছোট্ট একটি কক্ষেই থাকা-খাওয়া, ঘুমের ব্যবস্থা ছিল তার।

খালেদা জিয়া মুক্ত হয়ে ‘ফিরোজায়’ ফেরার ২৪ ঘণ্টা পর গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রিজভীও ফিরে গেছেন নিজ বাসা মোহম্মদপুরে। বাসায় পৌঁছানোর পর বিকেলে তিনি বলেন, ‘আমি ২০১৮ সালের ৩০ জানুয়ারি থেকে কার্যালয়ে অবস্থান করছি। সময়টা খুব খারাপ ছিল। আমি কার্যালয়ে অবস্থানের আটদিন পর ম্যাডামকে জেলে নেওয়া হলো। প্রতিদিনই দেখতাম পার্টির অফিসের নিচ থেকে নেতা-কর্মীদেরও ধরে নিয়ে যাচ্ছে। তখন আমি সিদ্ধান্ত নিলাম, নেতা-কর্মীদের মনোবল অক্ষুন্ন রাখতে আমি অফিসিই থাকব। সেখান থেকেই সীমিত পরিসরে রাজনৈতিক কর্মকা- অব্যাহত রেখেছি। ম্যাডাম  বেরিয়েছেন। আজ আমি বাসায় ফিরেছি।’ 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ