মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

নারী ও শিশু আদালতের বিচারক নিয়োগ খুলনায় আপিল ট্রাইব্যুনাল স্থাপনের দাবি

খুলনা অফিস : মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে নারী ও শিশু আদালতের বিচারক নিয়োগ, ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের স্টাফ বৃদ্ধি, আপিল ট্রাইব্যুনাল স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন আইন বিশেষজ্ঞরা। গত শনিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দিনব্যাপী (২০১৭ সালের) ষান্মাষিক বিচার বিভাগীয় সম্মেলনে বক্তারা এসব দাবি উত্থাপন করেন।

খুলনা জেলা জজ আদালতের কনফারেন্স কক্ষে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন জেলা ও দায়রা জজ বেগম জেসমিন আনোয়ার। সম্মেলনে খুলনার বিভিন্ন আদালতের বিচারক, খুলনা বারের সভাপতি ও সেক্রেটারী, জিপি, পিপি, সিনিয়র আইনজীবীসহ জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, মাদক অধিদপ্তরসহ চিকিৎসা বিভাগের সিনিয়র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। কনফারেন্সের প্রথম অধিবেশন উন্মুক্ত ছিল। তাতে বিচারকগণসহ বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন। দ্বিতীয় অধিবেশন কেবল বিচারকদের জন্য নির্ধারিত ছিল। মূলত: মামলা পরিচালনায় দ্রুত নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে উদ্ভুত সমস্যা চিহ্নিতকরণ, সমাধানে সিদ্ধান্ত গ্রহণ নিয়ে আলোচনা হয়। খুলনা মহানগর দায়রা জজ অরুপ কুমার গোস্বামীর পরিচালনায় বক্তারা এ বিষয়ে গঠনমূলক আলোচনা করেন। তারা দ্রুত নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে নারী ও শিশু আদালতের বিচারক নিয়োগ, ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের স্টাফ বৃদ্ধি, আপিল ট্রাইব্যুনাল স্থাপনের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। বারের সিনিয়র আইনজীবী এনায়েত আলী এ বিষয়ে সরকারের মনোযোগ আকর্ষণের অনুরোধ জানান। খুলনা জেলা পিপি কাজী আবু শাহীন খুলনার বিভিন্ন আদালতের বিচার কার্যক্রম দ্রুত নিষ্পত্তির বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি উদাহরণ হিসেবে রাকিব হত্যা মামলার উল্লেখ করেন।

এছাড়াও দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষে প্রত্যেক সহকারী জজ আদালতের জন্য স্টেনোগ্রাফারের পদ সৃষ্টি, অতিরিক্ত জেলা জজ আদালতের সেরেস্তাদারের পদ সৃষ্টিসহ তাদের নিরাপত্তা ও সামাজিক মর্যাদা রক্ষায় গাড়ির ব্যবস্থা করার জন্য সর্বসম্মত অভিমত প্রকাশ করেন। সর্বশেষে বিচার বিভাগীয় সম্মেলনের সভাপতি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য বিচারক ও আইনজীবীদের নিষ্ঠার সাথে কাজ করার অনুরোধ জানান। বার ও বেঞ্চের মধ্যে সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখার ওপরে গুরুত্বারোপ করেন তিনি। সকল আদালতের বর্তমান বছরের গত ৭ মাসের মাসিক বিবরণী পর্যালোচনা করে তিনি সামনে দ্বিগুণ হারে নিষ্পত্তি বাড়ানোর জন্য নির্দেশনা দেন। সম্মেলনের বিষয়ে রেজুলেশন আকারে সুপ্রীমকোর্টে প্রেরণ করারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ