বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

বিএনপির সাথে নির্বাচন কমিশনের সংলাপ আজ

 

স্টাফ রিপোর্টার : আজ রোববার নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সাথে বিএনপির সংলাপ। বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সংলাপে বসবে বিএনপি। গতকাল শনিবার দুপুরে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিজের চেম্বারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই কথা জানান। আজ সকাল ১১টায় আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনে এই সংলাপের কর্মসূচি নির্ধারিত আছে।

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে প্রতিনিধিদলে কারা থাকবে, কত সদস্যের হবে প্রশ্ন করা হলে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমাদের স্ট্যান্ডিং কমিটির সব সদস্যরা যাচ্ছেন। নির্বাচন কমিশন তো ১০ জনের কথা বলেছে এরকম প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওইটা আমরা চিঠি দিয়েছি আমাদের স্থায়ী কমিটির যতজন সদস্য তারা যাবেন। জাতীয় স্থায়ী কমিটির ১৯ সদস্যের মধ্যে বর্তমানে ১৬ জন রয়েছেন। এরা হচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার, তরিকুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান, এমকে আনোয়ার, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর (মহাসচিব), আমীর খসরু মাহমুদ চেীধুরী ও সালাহউদ্দিন আহমেদ। এর মধ্যে দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডনে আছেন। সালাহউদ্দিন আহমেদ বর্তমানে ভারতে অবস্থান করছেন। তরিকুল ইসলাম, এম কে আনোয়ার ও রফিকুল ইসলাম মিয়া অসুস্থ রয়েছেন। আসম হান্নান শাহও স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন যিনি গত বছর মারা গেছেন। তাই হিসেব মতে ১৩/১৪ জন সদস্য নির্বাচন কমিশনের সংলাপে অংশ নিতে পারেন। 

নয়া পল্টনে নিজের চেম্বারে শনিবার বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা কাল (রোববার) ইলেকশন কমিশনের সংলাপে যাচ্ছি। সেখানে আমাদের বক্তব্য লিখিত আকারের উপস্থাপন করব। যে কথাগুলো আমরা এতোদিন ধরে বলে আসছি, সেই কথাগুলো আমরা বলব। নাউ ইট ইজ দ্যা টার্ন অব ইলেকশন কমিশন। তারা কিভাবে রি-অ্যাক্ট করে, তাদের দায়িত্ব। তিনি বলেন, আমাদের লিখিত বক্তব্য আপনাদেরকেও (গণমাধ্যম) দেবো। 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে পরামর্শ পেতে গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসার মধ্য দিয়ে শুরু হয় নির্বাচন কমিশন। এর ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়ের পর ২৪ আগস্ট থেকে শুরু হয় নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ। এবার দলগুলোকে নিবন্ধনক্রমের নিচ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সে হিসেবে বিএনপির জন্য ১২ অক্টোবর ও আওয়ামী লীগের জন্য ১৫ অক্টোবর সংলাপের তারখি প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু বিএনপি দলীয় কর্মসূচির কথা বলে ১৫ অক্টোবর বসতে চাইলে তাদের জন্য সেইদনিই ঠিক হয়। আওয়ামী লীগের অনুরোধ তাদের সংলাপের জন্য ১৮ অক্টোবর তারিখ রাখা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ