মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

খুলনা মহানগর জাপার সম্মেলনকে ঘিরে অভ্যন্তরীণ বিরোধ চরমে

খুলনা অফিস : খুলনা মহানগর জাতীয় পার্টির (জাপা) আসন্ন সম্মেলনকে কেন্দ্র করে অভ্যন্তরীণ বিরোধ চরমে পৌঁছেছে। একে অপরকে ঘায়েল করার জন্য নানা কলাকৌশলও চলছে।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, আগামী ১৮ নবেম্বর মহানগর জাপার সম্মেলন। সম্মেলনে সভাপতি পদে মহানগর জাপার সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মুক্তিযোদ্ধা মোল্লা মুজিবর রহমান ও মহানগর জাপার যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ খায়রুল ইসলাম আর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মহানগর জাপার যুগ্ম আহবায়ক মোল্লা শওকত হোসেন বাবুল ও সদস্য সচিব এস এম মুশফিকুর রহমানের নাম শোনা যাচ্ছে।
মহানগর স্বেচ্ছাসেবক পার্টির নেতা এডভোকেট মাসুদুর রহমান জানান, ফেসবুকে কে বা কারা মুশফিকুর রহমানের নামে একটি পোস্ট করেছে। এ জন্য মুশফিকুর রহমান তাকে দায়ি করেছেন। এছাড়া আগামী ১৮ নবেম্বর মহানগর জাপার সম্মেলন হয়ার দিন তারিখ ঠিক হয়েছে। তবে তা চূড়ান্ত নয়। এ তারিখ ঠিক হয়ার পর পক্ষ বিপক্ষ অবস্থান নেয়াকে কেন্দ্র করে দেখে নেয়ারও হুমকি দেয়ায় মাসুদ থানায় জিডি করতে যান। কেন্দ্রীয় নেতাদের আশ্বাসে তিনি জিডি করা থেকে বিরত হন।
মহানগর জাপার যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ খায়রুল ইসলাম বলেন, মহানগর জাপার সম্মেলনের জন্য ১৮ নবেম্বর সম্ভাব্য দিন নিয়ে কথা হয়েছিল। তবে তা চূড়ান্ত নয়।
মহানগর জাপার যুগ্ম আহবায়ক মোল্লা শওকত হোসেন বাবুল বলেন, এতদিন ধরে মহানগর জাপার সদস্য সচিব মুশফিকুর রহমান দলটিকে জিম্মি করে রেখেছিল। সম্মেলনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে মুশফিকুর রহমান তার পদ হারানোর আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন। তাই তিনি তার বিপক্ষে অবস্থান নেয়া নেতা-কর্মীদের নানাভাবে চাপের মুখে রাখছেন।
মহানগর জাপার সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মুক্তিযোদ্ধা মোল্লা মুজিবর রহমান জানান, আগামী ১৮ নবেম্বর মহানগর জাপার সম্মেলন হয়ার সম্ভাব্য দিন ঠিক করা হয়েছে। তবে এ দিন মনে হয় সম্মেলন হবে না। সম্মেলনের দিন-তারিখ পেছাবে।
মহানগর জাপার সদস্য সচিব এসএম মুশফিকুর রহমান বলেন, ১৮ নবেম্বর সম্মেলন করার ব্যাপারে প্রাথমিক পর্যায়ে আলোচনা হয়। তবে যেহেতু মহানগরীর অধিকাংশ থানা এবং ওয়ার্ড কমিটি চূড়ান্ত হয়নি। এ জন্য সম্মেলনের দিনক্ষণ পেছানো হবে। তিনি বলেন, নগরীর প্রতিটি থানা এবং ওয়ার্ড কমিটির গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে এবং দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ খুলনায় আসার ব্যাপারে সময় দিতে রাজি হলে সম্মেলনের চূড়ান্ত তারিখ ঘোষণা করা হবে। তবে কিছু অতি উৎসাহী লোক সম্মেলন নিয়ে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি করছে। তিনি বলেন, স্বেচ্ছাসেবক পার্টির নেতা এডভোকেট মাসুদুর রহমানকে একজনের মামলা পরিচালনা করার জন্য টাকা দিয়েছিলাম। কিন্তু সে মামলা পরিচালনা না করে উভয় পক্ষের কাছ থেকে টাকা নেয়ায় তাকে বকাঝকা করা হয়।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক এসএম মুশফিকুর রহমান জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন। এতে করে মহানগর জাপার সভাপতি শেখ আবুল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলামসহ দলের বড় একটি অংশ ক্ষুব্ধ হয়ে পদত্যাগ করেন। পরে গত ২৯ মার্চ জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়কে আহবায়ক ও এসএম মুশফিকুর রহমানকে সদস্য সচিব করে মহানগর জাপার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ