বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

গুইদোকে ইউরোপের পর লাতিনের অধিকাংশ দেশের সমর্থন

ভেনেজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো

৫ ফেব্রুয়ারি, আল জাজিরা/গার্ডিয়ান : ভেনেজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদোকে দেশটির অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউরোপের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ ও লাতিন আমেরিকার দেশগুলোর সংগঠন লিমা গ্রুপের ১৪টি দেশ।

এর মধ্যে ১১টি দেশ ও কানাডার একটি পক্ষ ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনীকে দেশটির বিরোধী দলের নেতা হুয়ান গুয়াইদোকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে সমর্থন দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

এতে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর শাসনের বিরুদ্ধে বৈশ্বিক অবস্থান আরও জোরদার হচ্ছে।

কারাকাসে নতুন নির্বাচন দিতে আট দিনের সময়সীমা বেঁধে দেয়ার পর ফ্রান্স, স্পেন, জার্মানি, ব্রিটেন, পর্তুগাল, সুইডেন, ডেনমার্ক, অস্ট্রেলিয়া ও নেদারল্যান্ডস সমন্বিতভাবে গুইদোকে স্বীকৃতি দেয়ার উদ্যোগ নিল। অন্যদিকে লিমা গ্রুপের ওই ১১টি দেশ হলো আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, কানাডা, চিলি, কলম্বিয়া, কোস্টারিকা, গুয়েতেমালা, হন্ডুরাস, পানামা, প্যারাগুয়ে ও পেরু।

এদিকে লিমা গ্রুপের তিনটি দেশ গায়ানা, মেক্সিকো ও সেন্ট লুসিয়া এখনো গাইডোকে স্বীকৃতি জানায়নি।

এক বিবৃতিতে লিমা গ্রুপের ১৪টি দেশের মধ্যে ১১টি দেশ কোনো শক্তি প্রয়োগ না করে এবং কোনো প্রকার সাহায্য ছাড়াই ভেনেজুয়েলার ক্ষমতা পরিবর্তনের আহ্বান জানায়। লাটভিয়া ও লিথুনিয়াও ভেনিজুয়েলার স্বঘোষিত অন্তর্বর্তী পেসিডেন্ট গুইদোর পেছনে অবস্থান নিয়েছে।

যত দ্রুত সম্ভব একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নির্বাচনের আয়োজনে গুইদোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় দেশগুলো। এক টেলিভিশন ঘোষণায় স্পেনিশ প্রধানমন্ত্রী পেডরো স্যানচেজ বলেন, ভেনিজুয়েলায় পূর্ণাঙ্গ গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে আমরা কাজ করছি। মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা ও গণতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচনের আয়োজন করতে হবে। আমরা দেশটিতে আর কোনো রাজনৈতিক বন্দি দেখতে চাই না।

জাপান সফরে থাকা জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল সোমবার বলেন, গুইদো হচ্ছেন ভেনিজুয়েলার বৈধ অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট। দেশটির স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট গুয়াইদো এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্য ক্ষমতাধর দেশগুলোরও সমর্থন পেয়েছেন। এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট অবৈধ হওয়ার কারণে সংবিধান আমাকে অস্থায়ীভাবে ক্ষমতা গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে।’

তবে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো এখন পর্যন্ত নিজেকে ভেনেজুয়েলার বৈধ নেতা হিসেবেই দাবি করছেন।

গত মাসে একটি বিতর্কিত নির্বাচনের পর দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন নিকোলাস মাদুরো। যে নির্বাচনে কারাগারে বন্দি থাকার জন্য বিরোধী নেতাদের অনেকেই অংশ নিতে পারেননি। গত বছরের শেষ দিকে বিতর্কিত এক নির্বাচনে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হন মাদুরো। দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নেওয়ার পর থেকে মাদুরোবিরোধী বিক্ষোভ করছে দেশটির বিরোধীদলগুলো। এরই এক পর্যায়ে নিজেকে ভেনেজুয়েলার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা ও পার্লামেন্ট প্রধান গুইদো। এ ঘোষণা দেওয়ার পরপরই মাদুরেকে অস্বীকার করে গুইদোকে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনাসহ লাতিন আমেরিকার বেশ কয়েকটি দেশ। ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত অন্তত ১৭টি দেশও গুইদোকে স্বীকৃতি দিয়েছে। অপরদিকে রাশিয়া, চীন, তুরস্ক, ইরান প্রেসিডেন্ট মাদুরোর প্রতি সমর্থন জানিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ