রবিবার ৩১ মে ২০২০
Online Edition

কেরানীগঞ্জ থমথমে ॥ নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও পায়েহেঁটে বাড়ি যাত্রা

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাসকে কেন্দ্র করে উপজেলা প্রশাসনের সর্বোচ্চ তৎপরতায় কেরানীগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে থমথমে ভাব বিরাজ করছে। কোথাও কোন দোকান পাট খোলা নেই, রাস্তা ঘাট ও অনেকটা জনমানবহীন হয়ে পরেছে। দূর পাল্লার গাড়ি বন্ধ থাকায় ঢাকা মাওয়া রোডে পায়ে হেটে চলা মানুষের অনেক ভীড় দেখা গেছে।
সরেজমিন কেরানীগঞ্জের কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুড়ে দেখা যায়, দোকানপাট সব বন্ধ, রাস্তা ঘাট ও জনমানবশূন্য। তবে প্রচুর ভীড় পরিলক্ষিত হয় বুড়িগঙ্গা ১ম ও ২য় সেতুতে। যেখানে করোনা সতর্কতায় মানুষদের সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখতে বলা হয়েছে। সেখানে ঢাকা থেকে মাওয়ামুখী মানুষজনের ঢল দেখা যায়।
কথা হয় ফরিদপুরগামী মো: ইউসুফের সাথে। তিন ছেলে মেয়ে ও স্ত্রী সহ মাওয়া যাচ্ছেন। লক ডাউন সত্ত্বেও কেন বাসা থেকে বের হলেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১০ দিন সব কিছু বন্ধ, খামু কি, তাই পেটের চিন্তায় গ্রামে যাচ্ছি। এক ই কথা বলেন মো: বাসার, পেশায় রিস্কা চালক বাসার জানান, বন্ধ থাকার কারনে রিক্সা চালাতে পারবেন না তাই গ্রামের দিকে যাচ্ছেন পরিবার নিয়ে। এই লোকসমাগম করোনা ঝুকি বাড়াচ্ছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে উত্তর দেয় নি কেউ।
কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা অমিত দেবনাথ বলেন, কেরানীগঞ্জ বাসীর নিরাপত্তায় সারা দেশের ন্যায় কেরানীগঞ্জেও সকল দোকান পাট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সকলকে ঘরের ভেতরে নিরাপদে থাকার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। এর আগে দুপুর ২ টায় পোস্তাগোলা চীনমৈত্রী ১ম সেতুর বন্ধ করেদেন যানজটের খবর পেয়ে ঊপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ রাজস্ব (ভূমি) কমিশনার সানজিদা পারভীন সহ তার সেনাবাহিনী মনিটরিং টিম ও পোস্তাগোলা চীনমৈত্রী ১ম সেতুতে আসেন । এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সরকারের ঘোষণা মতে কোন যাত্রীবাহী গাড়ী চলবে না। চারজনকে একসাথে চলাচলে নিষিদ্ধ। তাই আমরা কেরানীগঞ্জের উপর দিয়ে কোন যাত্রীবাহী গণপরিবহন, মোটরসাইকেল, প্রাইভেট কার যেতে দিচ্ছি না। আমরা পায়ে হেঁটে চলাচলে মানুষকে যেতে বাধা দিচ্ছি কিন্তু কোন মতেই আটকানো যাচ্ছে না। এসময় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশকে মাঠে মনিটরিং করতে দেখা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ