রবিবার ২১ জুলাই ২০২৪
Online Edition

পুরস্কারের সব টাকা মাঠকর্মীদের দিলেন মোহাম্মদ সিরাজ 

স্পোর্টস রিপোর্টার: বোলিং দিয়ে ভারতের ভক্তদের মন তো আগেই জয় করে নিয়েছেন মোহাম্মদ সিরাজ। এবার জয় করলেন অন্যকিছু। রেকর্ডবুকে তোলপাড় ফেলে দেয়া স্পেলে ভারতকে জিতিয়েছেন এশিয়া কাপ। এনে দিয়েছেন সহজ এক জয়। ম্যাচ সেরার পুরস্কারটাও অবধারিতভাবেই পেয়েছেন তিনি। তবে এরপরেই করলেন মন জিতে নেয়ার মত কিছু। ম্যাচসেরা হয়ে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা পেয়েছেন তিনি। পুরস্কারের সেই টাকা তাৎক্ষণিকভাবে কলম্বোর মাঠকর্মীদের দিয়ে দেন ভারতের এই পেসার। ভারতীয় বোলারের মতে, মাঠকর্মীদের জন্যই বৃষ্টির মধ্যেই খেলা সম্ভব হয়েছে। তাই নিজের পুরস্কার মূল্য তাদের হাতে তুলে দিয়েছেন সিরাজ। ম্যাচ শেষে সেরার পুরস্কার নিতে গিয়ে শেষে সিরাজ বলেছেন, ‘এই পুরস্কার কলম্বোর মাঠকর্মীদের প্রাপ্য। তারা না থাকলে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করাই সম্ভব হতো না। তাই এই টাকা ওদের হাতে তুলে দিতে চাই।’ ফাইনালে এমন সাফল্যের কথাও অবলীলায় জানিয়েছেন সিরাজ। বোলিংয়ে একটি বদল এনেই সফল হয়েছেন সিরাজ। শ্রীলঙ্কার ইনিংস শেষে ব্রডকাস্টারকে সে কথাই জানান সিরাজ নিজেই। ভারতের হয়ে ওডিআই ক্রিকেটে নতুন বলেই সাধারণত বল করেন সিরাজ। কিন্তু সাধারণত ক্রস সিম (বলের সিমের সঙ্গে আঙ্গুল থাকে আড়াআড়ি) ধরে বল করেন তিনি। ফলে পিচে বল সিমে পড়ে না। ক্রস সিমে বল করলে পিচে পড়ে কোনো বল লাফিয়ে ওঠে। আবার কোনো বল একটু নীচের দিকে থাকে। এভাবে বল ধরলে সাধারণত ইনসুইং বেশি হয়।

ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নিজের সিম বদলে ফেলেছিলেন সিরাজ। টুর্নামেন্টের অফিসিয়াল ব্রডকাস্টারকে ভারতীয় এই পেসার বলেছেন, ‘আমি সাধারণত ক্রস সিমে বল করি। কিন্তু এই ম্যাচে সিম ধরে বল করছিলাম। তাই ইনসুইংয়ের থেকে আউটসুইং বেশি হচ্ছিল। সেটাই কাজে লাগিয়েছে। বেশির ভাগ ব্যাটার আউটসুইংয়ে আউট হয়েছে।’ সিরাজ বলেছেন, ‘উইকেট থেকেই সব হচ্ছিল। বল সুইং করছিল। তাই আমি বেশি কিছু করার চেষ্টা করিনি। শুধু ব্যাটারের ব্যাটের কাছে বল করার চেষ্টা করেছি। তার পরে বাকি কাজ পিচ করেছে। ব্যাটারদের খেলানোর চেষ্টা করেছি। তাতেই সফল হয়েছি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ