সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪
Online Edition

জামায়াতে ইসলামী দুর্গত মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছে -অধ্যাপক মুজিবুর রহমান

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী জামালপুর জেলা দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার হলকারচর ফুটানি বাজার, ইসলামপুর উপজেলার বেলগাছা ও সাপধরি ইউনিয়নে বন্যার্তদের মাঝে উপহার সামগ্রী প্রদান করেন জামায়াতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীরে জামায়াত ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী জামালপুর জেলা দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার হলকারচর ফুটানি বাজার, ইসলামপুর উপজেলার বেলগাছা ও সাপধরি ইউনিয়নে গত মঙ্গলবার বন্যার্তদের মাঝে উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয় । এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নায়েবে আমীরে জামায়াত ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ময়মনসিংহ অঞ্চল পরিচালক ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ ডক্টর সামিউল হক ফারুকী , ময়মনসিংহ অঞ্চল টিম সদস্য ও সাবেক জেলা আমীর নাজমুল হক সাঈদী, ভারপ্রাপ্ত জেলা আমীর অধ্যাপক খলিলুর রহমান , জেলা সেক্রেটারি এডভোকেট আব্দুল আউয়াল, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার আমীর মাওলানা মাহবুবুর রহমান তালুকদার , উপজেলা সেক্রেটারি কাজী আতিকুর রহমান, সহকারী সেক্রেটারি ইসমাইল হোসেন, হাফেজ আতিকুর রহমান, ইসলামপুর উপজেলার আমীর মাওলানা লিয়াকত আলী , নায়েবে আমীর আমজাদ হোসেন, বাইতুল মাল সেক্রেটারি আবু মুসা, ইউনিয়ন আমীর সহ জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ। 

নায়েবে আমিরে জামায়াত অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন বিপদ মুসিবত আল্লাহর কাছ থেকে আসে সর্ব অবস্থায় আল্লাহর সাহায্য চাইতে হবে। দুর্গত ও বন্যার্ত মানুষের সাহায্য করার দায়িত্ব সরকারের কিন্তু সরকার জনগণের দ্বারা নির্বাচিত না হওয়ায় তাদের কোন জবাবদিহির মন মানসিকতা নেই, এ সরকার বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামীর নেতাকর্মীদের জেল জুলুম ও ফাঁসি দিয়ে জনগণ থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, জামায়াতে ইসলামী তাদের ক্ষুদ্র সামর্থ্যের জায়গায় থেকে  দুর্গত মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছে। আমরা আপনাদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করছি এবং আমাদের কর্মীদের অর্থ দ্বারা সংগ্রহীত সামান্য উপহার নিয়ে আপনাদের সামনে উপস্থিত হতে পেরেছি, দেশে ইসলামী শাসন কায়েম হলে দেশ থেকে দুর্নীতি দূর হবে, মানুষ তার অধিকার ফিরে পাবে। প্রধান অতিথি উপস্থিত সবাইকে ইসলামী অনুশাসন পরিপালন করে ইসলামী সমাজ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

মুসলিম ও অমুসলিম প্রায় ৫ শতাধিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত নারী ও পুরুষদের মাঝে চাল, ডাল, তেল, চিড়া মুড়ি, স্যালাইন  ও আলু সংবলিত প্যাকেট বিতরণ করা হয়।

বিশেষ অতিথি ডক্টর সামিউল হক ফারুকী বলেন, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা একটি বিশাল অংশ যমুনা বিধৌত এলাকা। প্রতিবছর বহু মানুষ নদী ভাঙনের শিকার হয়। তদুপরি আকস্মিক এই বন্যায় বহু মানুষের বাড়িঘর এবারও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে । সরকার তথা কথিত জনপ্রতিনিধিগণ এই পর্যন্ত জনগণের কাছে আসে নাই। আমরা শত বাধা পেরিয়ে আপনাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছি,  ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠিত হলে আমরা যান প্রাণ দিয়ে আপনাদের জন্য কাজ করব ইনশাল্লাহ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি  

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ